• সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ১০:১২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত উখিয়া স্পেশালাইজড হসপিটাল এ জনপদের চাহিদা, আশা-আকাঙ্ক্ষা পুরণে সক্ষম? নাকি শুধুই গতানুগতিক! ফেসবুকে পরিচয় ও প্রেম-অতপরঃ এক কলেজ শিক্ষিকাকে কলেজ ছাত্রের বিয়ে! উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা নির্বাচিত। উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের কাউন্সিল ও সম্মেলন কালঃ সভাপতি ও সাঃসম্পাদক পদে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস। আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই , মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ডঃ শিরীন আখতার। আসন্ন উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি বার্ষিক নির্বাচনে, সভাপতি পদে জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী স্পষ্টতঃ এগিয়ে। উখিয়ায় পয়ঃনিষ্কাশন ও পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার অপ্রতুলতা এবং ময়লা ফেলার নির্দিষ্ট ভাগাড়ের অভাব। দেশে প্রতিবছর পানিতে ডুবে ১৪ হাজারের বেশি শিশুর মৃত্যু হয়। যানযট নিরসন ও বনভুমি রক্ষার্থে কঠোর সিদ্ধান্তে যাচ্ছেন উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

দ্বিতীয় দফায়, ৩০ টি বাস করে উখিয়া থেকে ভাসানচরের উদ্দেশ্যে প্রায় ১৪০০ এর অধিক রোহিঙ্গার যাত্রা।

AnonymousFox_bwo / ২২২ মিনিট
আপডেট সোমবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২০

আইকন নিউজ ডেস্কঃ

দ্বিতীয় দফায় স্বেচ্ছায় আরও ১ হাজার ৪ শ’ জনের অধিক রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশু ভাসানচরের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। সোমবার সকাল ও দুপুরে উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠ ট্রানজিট পয়েন্ট থেকে ৩০টি বাসে করে হাতিয়ার ভাসানচরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন তারা। এছাড়া তাদের নিরাপত্তার জন্য গাড়ি বহরে পুলিশের একটি গাড়ি এবং একটি অ্যাম্বুলেন্স ছিল।

রবিবার বিকেলে ও সোমবার সকালে উখিয়া-টেকনাফের ৩৪টি ক্যাম্প থেকে রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নিয়ে যেতে উখিয়া কলেজ মাঠে অস্থায়ী ট্রানজিট পয়েন্টে রোহিঙ্গাদের রাখা হয়।

৩৪টি ক্যাম্প থেকেই ভাসানচরে স্ব-ইচ্ছায় যেতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গারা রোববার বিকেল থেকেই ট্রানজিট পয়েন্টে আসতে শুরু করে। সোমবার সকালেও ৫ শতাধিক রোহিঙ্গা আসেন ভাসানচরে যাওয়ার উদ্দেশে।

চলতি মাসের ৪ ডিসেম্বর প্রথম দফায় ১ হাজার ৬৪২ রোহিঙ্গা ভাসানচরে গেছেন।

টেকনাফ নয়াপাড়া ও উখিয়ার কুতুপালংয়ের নিবন্ধিত ও অনিবন্ধিত ক্যাম্পের মাঝিরা বলেন, গতবারের উল্টো এবারের চিত্র। ওই সময় রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নিতে অনেক বোঝাতে হয়েছে। কিন্তু ২০ দিনের মধ্যে চিত্র পাল্টেছে। এবার রোহিঙ্গারা ভাসানচরে যেতে নিজেরাই আগ্রহী হয়ে তালিকায় নাম দিয়েছেন।

ভাসানচরে ৪ ডিসেম্বর যাদের আত্মীয়স্বজন গেছে, তাদের কাছে সুযোগ-সুবিধার খবর শুনেই অনেকেই যেতে আগ্রহী হয়ে উঠে।
এরই ধারাবাহিকতায় ভাসানচরে যাওয়ার জন্য ১১৩৪ জন রোহিঙ্গা আগ্রহ প্রকাশ করেন।আরো আগ্রহী অনেক রোহিঙ্গা স্ব-ইচ্ছায় শংশ্লিষ্ট ক্যাম্প ইনচার্জের কার্যালয়ে নাম দিচ্ছে বলে রোহিঙ্গা নেতা হাফেজ জালাল আহমদ জানিয়েছেন।

জানা গেছে, উখিয়া ও টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থেকে এসব রোহিঙ্গারা ভাসানচরে যাচ্ছে। উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পের রোহিঙ্গা নেতা মোহাম্মদ নুর জানান,ক্যাম্পে-১, ২, ৩, ৪, ৫, ৮ ডব্লিউ ক্যাম্প থেকে যাচ্ছে অনেক রোহিঙ্গা পরিবার। উখিয়ার কুতুপালং-৪ নম্বর ক্যাম্প থেকে ২৭ পরিবার । কুতুপালং-২ ডব্লিউ থেকে গেছে ১০০ পরিবার।

উখিয়ার লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের (ইস্ট) মাঝি নুরুল আমিন বলেন, ‘আমার ব্লক থেকে কয়েকটি পরিবার ভাসানচরে গেছে তাদের কাউকে জোর করা হয়নি।

আইকন নিউজ/আ র/ ২৮শে ডিসেম্বর-২০২০


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....