• রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৫:২৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
যখন আমি প্রকৃতির নিয়মে বুড়িয়ে যাবো সবই তাঁর দান, সুমহান! জানেন, পুত্র সন্তান জন্মালেই কেন পিতার হাতে খুন হতে হয় নির্মমভাবে! উখিয়ায় রাজাপালং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস পালিত মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের জোয়ান কতৃক, ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ রোহিংগা নাগরিক ধৃত উখিয়ার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু বক্কর ছিদ্দিককে হাজার মানুষের ভালবাসা ও রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন উখিয়ায় পাহাড়ধ্বস প্রবণ এলাকায় ইউএনও’র সতর্কতা, জরুরী প্রয়োজনে 01882160082 পানি নিষ্কাশনের একমাত্র ড্রেনেজটি বন্ধ করে দেওয়ায়, উখিয়ার মালভিটা পাড়ার শত শত ঘর বাড়ি কোমর পানিতে সয়লাব ” ১১নং মঘাদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শাহীনুল কাদের চৌধুরী। বাংলাদেশে সংক্রমণের ৮০ শতাংশই ভারতীয় ধরন

একান্ত ভাবনাঃ করোনা ও উন্নত চিকিৎসায় বেগম খালেদা জিয়ার জন্য সরকারের জাগ্রত মানবতাবোধ

admin / ৭৩ মিনিট
আপডেট রবিবার, ৯ মে, ২০২১

এম আর আয়াজ রবি।
বাংলাদেশের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী, এ পর্যন্ত একক কৃতিত্ব জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রত্যেকটি আসনে অপরাজিত, প্রত্যেকবার পাঁচ আসনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত, বাংলাদেশের বহুল জনপ্রিয় নেত্রী, একসময়ের আপোষহীন নেত্রী বলে খ্যাত, বিএনপি চেয়ারপার্সন, বেগম খালেদা জিয়া এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। দীর্ঘ প্রায় দু’ বছর কারাগারের অন্ধকার সেলে বন্ধী ছিলেন তিনি। গত বছর করোনাকালে সরকারের উচ্চ মহলের বদান্যতায় জেলের অন্ধকার প্রকোষ্ট থেকে মুক্ত হয়ে নিজগৃহে অন্তরীন অবস্থায় রয়েছেন তিনি। এরিই মধ্যে বিভিন্ন জটিল রোগ ও বার্ধক্যজনিত রোগ, শোকে ভোগছিলেন তিনি। ইতিমধ্যে গত ১১-ই এপ্রিল-২০২১ তারিখে বেগম খালেদা জিয়া, গৃহ কর্মীসহ পরিবারের ৯ সদস্যের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। গত ২৭শে এপ্রিল-২০২১ থেকে করোনা চিকিৎসার জন্য রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরবর্তী জটিলতার কারণে তাঁকে সেখানে ভর্তি করা হয়েছিলো।

এর পুর্বে গত ১১ই এপ্রিল, সিটি স্ক্যান রিপোর্টে তাঁর ফুসফুসে পাঁচ শতাংশ সংক্রমণ পাওয়া গিয়েছিল বলা হয়েছিল। গত বৃহস্পতিবারের মতো আজও অবস্থা স্থিতিশীল আছে বলে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার কর্তৃক জানা গেছে।

খালেদা জিয়া গত সাতাশে এপ্রিল থেকে রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরবর্তী জটিলতার কারণে তাকে সেখানে ভর্তি করা হয়েছিলো। বর্তমানে তাঁর উন্নত চিকিৎসাসেবা অতীব জরুরী হয়ে পড়ার কারনে পরিবারের পক্ষ থেকে দেশের বাইরে নিয়ে যাবার জন্য সরকারের কাছে আবেদন করা হয়েছে। সরকার উনার চিকিৎসার ব্যাপারে খুব নমনীয় ভাব পোষন করে, খুবই আন্তরিকতা ও মানবীক দৃষ্টিকোন থেকে ব্যাপারটা দেখছেন বলে বিভিন্ন মাধ্যমে আমরা অবহিত হয়েছি।

যেহেতু, তিনি (বেগম খালেদা জিয়া) জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে উপনীত, তাই উনাকে বিদেশে নিয়ে উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজনীয়তা প্রকটভাবে দেখা দিয়েছে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদার জিয়ার প্রয়োজনীয় চিকিৎসার জন্য পুরো জাতি আজ অধীর আগ্রহে প্রহর গুনছেন, কখন আইনী জটিলতা দুরীভূত হয়ে, সরকারের গ্রীন সিগন্যালে উন্নত চিকিৎসা সেবা গ্রহনের জন্য উন্নত বিশ্বে যেতে পারছেন।

ইতিমধ্যে দন্ডবিধির ৪০১(১) ধারা মতে, সরকার কর্তৃক উনার দন্ডাদেশ স্থগিতের সিদ্ধান্ত গ্রহনের খবরও বেশ জোরালোভাবে উচ্চারিত হচ্ছে। বেগম খালেদা জিয়া এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎকরা অনেক আগেই তাঁকে উন্নত চিকিৎসা নেওয়ার পরার্মশ দিয়েছিলেন। তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ যেতে উদগ্রীব ছিলেন সেই তখন থেকেই।কিন্তু বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় আইন এবং সরকার। অবশেষে সরকারের মধ্যে মন-মানসিকতার পরিবর্তন ঘটিয়ে, ইতিবাচক পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এ ব্যাপারে আজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। ইতিমধ্যে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে বেগম খালেদার জিয়ার উন্নত চিকিৎসার নিমিত্তে, বিদেশ যাবার প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহণের নির্দেশনা দিয়েছেন।

আমরা সরকারকে সাধুবাদ ও কৃতজ্ঞতাবোধ জানাতে চাই, সাথে সাবেক তিনবারের জনপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী, বিএনপি চেয়ারপার্সন, বেগম খালেদা জিয়ার আশু রোগমুক্তি কামনা করছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর....