• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৯:০৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত উখিয়া স্পেশালাইজড হসপিটাল এ জনপদের চাহিদা, আশা-আকাঙ্ক্ষা পুরণে সক্ষম? নাকি শুধুই গতানুগতিক! ফেসবুকে পরিচয় ও প্রেম-অতপরঃ এক কলেজ শিক্ষিকাকে কলেজ ছাত্রের বিয়ে!

পানি নিষ্কাশনের একমাত্র ড্রেনেজটি বন্ধ করে দেওয়ায়, উখিয়ার মালভিটা পাড়ার শত শত ঘর বাড়ি কোমর পানিতে সয়লাব

AnonymousFox_bwo / ২৯৭ মিনিট
আপডেট রবিবার, ৬ জুন, ২০২১

আইকন নিউজ ডেস্কঃ

উখিয়া উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন মালভিটা পাড়ায় পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় জনৈক সেলিম নামক এক বাসিন্দা।

এতে ভোগান্তিতে পড়েছে শতাধিক পরিবার। দেখা যায় উখিয়া উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন এলাকার মালভিটা পাড়া গ্রামে প্রায় শতাধিক পরিবারের বসবাস। উখিয়া বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজ থেকে শুরু করে উপজেলা পরিষদ সহ তৎমধ্যে বসবাস করা প্রায় শতাধিক পরিবারের বসত ঘরের একটি মাত্র পানি নিষ্কাশন পথ ড্রেনটি স্থানীয় প্রভাবশালী সেলিম অবৈধ পন্থায় মাটি ভরাট করে বন্ধ করে দেয়। অত্র ড্রেন ভরাট করার পুর্বে  ভরাট কারী সেলিমের সাথে স্থানীয়রা ও উপজেলা প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা কথা বলতে গেলে উনাকে মারমুখী অবস্থানে দেখে কথা না বলে চলে আসতে বাধ্য হয়েছিল বলে জানা যায়।

অত্র প্রতিবেদক, ঘটনাস্থল পর্যবেক্ষণ করে দেখতে পায়, মালভিটা পাড়ার বাসিন্দা জনৈক জসীম উদ্দীনের বাড়ীর সামনে পর্যন্ত আসা ড্রেনটি সেই  কথিত সেলিম দালান নির্মানের বাহানা দিয়ে মাটি ভরাট করে আটকে দেয় যা দেশের পরিবেশ আইন ও মানবাধিকারের সম্পুর্ন লঙ্গন বলে মনে করেন স্থানীয় সচেতন মহল ও স্থানীয় জনসাধারন। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করে,স্থানীয় জনসাধারনের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে মাননীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি আবেদন জমা দেবার  খবরও পাওয়া যায়।

ভুক্তভোগী এলাকার বেশিরভাগ পরিবারের অভিযোগ এই ড্রেনেজ ব্যবস্থা বন্ধ করার কারনে অল্প বৃষ্টিতে উপজেলা পরিষদের পাহাড়ের পানি সহ অত্র এলাকায় পাহাড়ী ঢলের পানি আটকে চরম জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে আজ কোমর পানিতে সয়লাব মালভিটা এলাকা।ইতিমধ্যে আমরা দেখতে পেলাম মাষ্টার রফিক সাহেবের বিল্ডিং এর নিচ তলায় হাটু পরিমান পানি। এরুপ নিম্ন অঞ্চলের শত শত ঘর বাড়ি অল্প বৃষ্টিতে অত্র এলাকার বাসিন্দারা চরম ভোগান্তিতে পতিত হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। বাড়ির আংগিনায় রোপনকৃত শাকসবজি, তরিতরকারী, পালনকৃত হাস মুরগীসহ গৃহপালিত অনেক কিছুসহ, পানিতে ভিজে লক্ষ লক্ষ টাকার সম্পদের ক্ষয় ক্ষতি হবার সম্ভাবনা হয়েছে। এ বিষয়ে স্থানীয় পরিবেশ কর্মী, সেভ দ্যা নেচার কক্সবাজার জেলার সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মঈনুদ্দীন শাহীনের মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন ‘এটি দেশীয় পরিবেশ ভারসাম্য রক্ষা আইনের প্রতি সম্পুর্ন বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন ছাড়া কিছুই নয়।

এভাবে শত শত পরিবারের ব্যবহারের পানি নিষ্কাশনের একটি মাত্র পথ বন্ধ করে উনি শুধু পরিবেশ নয় মানবাধিকারের প্রতিও চরম ধৃষ্টতা  প্রদর্শন  করেছেন।’

এ প্রসংগে, উপজেলা প্রেসক্লাব উখিয়ার সম্মানীত সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার আবুল কালামের সাথে কথা বললে উনি বলেন, ‘এখন বর্ষা মৌসুম এর যাত্রা মাত্র শুরু। প্রয়োজনী ড্রেইনেজ ব্যবস্থা না রেখে, অপরিকল্পিত নগরায়নের ফলে উখিয়ার বিভিন্ন এলাকার সাধারন মানুষ অল্প বৃষ্টিতে নাকাল হয়ে পড়ছে। এখনই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ  গ্রহন না করা হলে পুরো বর্ষা মৌসুমে অত্র মালভিটাসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার সাধারন মানুষের কষ্টের শেষ থাকবে না। তাই উখিয়া উপজেলার মান্যবর নির্বাহী অফিসার মহোদয় ও এলাকার জন প্রতিনিধির প্রতি অত্র জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি অত্যন্ত বিবেচনায় রেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য তিনি বিনীত আহবান জানান’।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....