• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৩৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, কথিত প্রেমিক কক্সবাজারের রেজা চট্টগ্রামে আটক ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত উখিয়া স্পেশালাইজড হসপিটাল এ জনপদের চাহিদা, আশা-আকাঙ্ক্ষা পুরণে সক্ষম? নাকি শুধুই গতানুগতিক!

হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজ কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে ঝরে গেলে ৫২ টি মূল্যবান জীবন

AnonymousFox_bwo / ২১৮ মিনিট
আপডেট শুক্রবার, ৯ জুলাই, ২০২১

আইকন নিউজ ডেস্কঃ 

গতকাল ৮-জুলাই-২০২১ রোজ বৃহস্পতিবার বিকালে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কর্ণগোপ এলাকায় হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে কারখানায় কর্মরত এ পর্যন্ত ৫২ জন শ্রমিক নিহত হয়েছেন ও আরও বহু সংখ্যক শ্রমিক হতাহতের খবর পাওয়া গেছে। প্রায় দীর্ঘ ২১ ঘন্টা ১৮টি ফায়ার ইউনিটের অক্লান্ত পরিশ্রমে উক্ত আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৫ম ও ৬ষ্ট তলার এখনও কোন হতাহতের হিসাব পাওয়া যায়নি। তাই হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

সূত্রে জানা গেছে, গ্রীল বন্ধ থাকায় এবং কারখানায় অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র না থাকার কারনে আগুনের লেলীহান  শিখা দ্রুত চতুর্দিকে ছড়িয়ে পড়াতে শ্রমিকরা নিরাপদে নেমে আসার সুযোগ পায়নি। তাছাড়া হুড়াহুড়িতে প্যানিক হয়ে অনেকে মারা গেছে, উচ্চ দালান থেকে প্রান বাঁচাতে লাফ দেওয়ায় অনেকেই হতাহত হয়েছে বলে জানা যায়।

অগ্নিদগ্ধ হয়ে এ ধরনের মৃত্যু বড়ই বেদনাদায়ক। আল্লাহ্‌ রাব্বুল আলামীন এই মানুষগুলোকে ক্ষমা করুন এবং জান্নাত নসীব করুন। শোক সন্তপ্ত পরিবারের এই শোক কাটিয়ে উঠার তাওফিক দান করুক।

নিহত লোকদের বেশির ভাগ নিম্ন আয়ের শ্রমিক। তাদের একেক জনের মৃত্যুতে পরিবারে শোকের ছায়ার পাশাপাশি এক দারুন অনিশ্চয়তা ভর করছে। মালিক পক্ষের উচিত হবে নিহতদের পরিবারবর্গকে পুনর্বাসনের যৌক্তিক উদ্যাগ গ্রহণ করা এবং তাদের পাশে থাকা। পাশাপাশি আহতদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করা।

আহত সকলের সুস্থতার জন্য মহান প্রভুর দরবারে সবাই কাতর কন্ঠে দো’য়া করএন সেজন্য সবাই দোয়া করুন। নিহত ও ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের সদস্যদেরকে আল্লাহ্‌ তা’য়ালা এই কঠিন বিপদে উত্তম ধৈর্যধরার তাওফিক দান করুন।

যে সমস্ত পরিবার অভিভাবকহীন হয়ে পড়েছে আল্লাহ্‌ সুবহানাহু ওয়া তা’য়াল সেই সমস্ত পরিবারের অভিভাবক হিসেবে তাদের প্রতি রহম করুন, সাহায্য করুন এবং হেফাজত করুন। আমীন।।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....