• রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
প্রসংগঃ সীমান্ত এলাকায় জন্মনিবন্ধন কার্যক্রম এবং স্থানীয়দের অসহ্য যন্ত্রনা ও বিড়ম্বনা ব্রেইন টিউমার আক্রান্ত তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী টুম্পাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন! প্রেক্ষিতঃ সীমান্তবর্তী এলাকার বিদ্যমান সমাস্যা ও জন্ম নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় স্থানীয়দের অসহ্য বিড়ম্বনা ইউপি নির্বাচনের হাওয়া…. পালংখালী চেয়ারম্যান প্রার্থী ইন্জিনিয়ার রবিউল হোসেনের ১০ ইশতেহার ঘোষণা উখিয়া প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব অর্পণ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ ও আমার বক্তব্য উখিয়ার সিকদার বিলের তারেক ইয়াবাসহ লোহাগাড়ায় গ্রেফতার তাবৎ জীবনে জীবনসঙ্গীর প্রতি ভালবাসা অফুরান কালের বিবর্তনে বিলাসিতার রকম ফের এনজিও থেকে স্থানীয়দের ছাঁটাইয়ের হিড়িক, কিন্তু ভ্যানগার্ড কেউ নেই উখিয়া প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব অর্পণ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ ও আমার বক্তব্য

রোহিঙ্গা শরনার্থীদের চাকুরী দিয়ে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে এনজিও সংস্থা DRC এবং Codec, যেখানে স্থানীয়রা বঞ্চিত হচ্ছে।

admin / ৬৪ মিনিট
আপডেট বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১

আইকন নিউজ ডেস্কঃ 

গত ২০১৭ সালে মায়ানমার সেনাবাহিনীর অমানবিক নির্যাতনের কারণে বতর্মানে ১৫ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা কক্সবাজার জেলার উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় আশ্রয় নিয়েছে। এই রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী ও হোস্ট সম্প্রদায়ের জন্য এনজিও ও আইএনজিও এর মানবিক কার্যক্রম প্রশংসনীয়। কিন্তু স্থানীয় জনগোষ্ঠীর এই বিশাল সংখ্যক শরণার্থীদের জন্য অর্থনৈতিক, সামাজিক ও বাস্তুসংস্থান জনিত সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে প্রতিনিয়ত, তাই RRRC ও এনজিও ব্যুরো স্থানীয়দের চাকরিতে অগ্রাধিকার দেওয়ার বিজ্ঞপ্তি জারি করে।

কিন্তু DRC এবং Codec নামক এনজিও মাঠ পর্যায়ে কর্মী নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম করে যাচ্ছে বলে সুত্রে প্রকাশ। সরকারি নির্দেশনায় রোহিঙ্গাদের গার্ড এবং ক্লিনার ব‍্যতিত অন্য কোন পদে চাকরিতে না নেয়ার ব্যাপারে নির্দেশনা থাকলেও উল্লেখিত এনজিও, আইএনজিও স্থানীয়দের বঞ্চিত করে রোহিঙ্গাদের অগ্রাধিকার দিচ্ছে। যার ফলে স্থানীয়দের মাঝে সৃষ্টি হচ্ছে ক্ষোভ যা অপ্রীতিকর ঘটনার জন্ম দিতে পারে যে কোন মুহুর্তে। DRC নামক আইএনজিও সাইট ম‍্যানেজমেন্ট নামক গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে ক্যাম্প- 8E, 8W, 9, 10, 11, 12 তে ভলেন্টিয়ার পদে চাকুরী থেকে কিছু স্থানীয়দের ছাঁটাই করেছে এবং ১৫৫ জন রোহিঙ্গা শরণার্থীদের উচ্চ বেতনে চাকুরী দিয়ে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে এবং CODEC নামক এনজিও wfp এর অর্থায়নে school feeding program in camps নামক প্রকল্পে ১৬টি সেবা সেন্টারে ৪০১ জন রোহিঙ্গা শরণার্থী ভলেন্টিয়ার পদে চাকুরী করে যেখানে একজনও বাংলাদেশী নেই, দুঃখজনক হলেও সত‍্য যে উক্ত প্রকল্পের সকল সেবা সেন্টার হোস্ট কমিউনিটিতে হওয়ায় প্রতিটি অফিসে কভিড পরিস্থিতিতেও কমপক্ষে ৪০-৫০জন রোহিঙ্গা ভলেন্টিয়ার চাকুরী করায় যেকোন সময় স্থানীয়দের সাথে অপ্রীতিকর ঘটনা গঠতে পারে এবং অপরাধ কর্মকাণ্ড বাড়তে পারে।

অত্যন্ত দুঃখের বিষয় হলেও সত্য যে, চাকুরীর নিয়োগের ক্ষেত্রে সরকারি নির্দেশনায় স্থানীয়দের অগ্রাধিকার দেয়ার বিষয়টি স্পষ্ট থাকলেও অবহেলা করা হচ্ছে। যা এনজিও ব্যুরো এবং আরআরআরসি (RRRC) নিয়ম পরিপন্থী। এই ধরনের চরম অনিয়মের বিষয়ে অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি, ৫নং পালংখালী, উখিয়া সংশ্লিষ্ট সিআইসি মহোদয়ের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ দিয়েও সংশ্লিষ্ট এনজিও কর্তৃপক্ষ রোহিঙ্গাদের চাকুরী থেকে বাদ স্থানীয়দের নিয়োগ কার্যক্রমে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। DRC এবং Codec নামক এনজিও অবিলম্বে রোহিঙ্গাদের চাকুরী থেকে বাদ দিয়ে উক্ত স্থলে স্থানীয়দের নিয়োগ নিশ্চিত না করলে দাবি আদায়ে ‘অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি, ৫নং পালংখালী’, উখিয়া ক‍্যাম্পে প্রবেশ করতে না দেয়ার মত কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করবে বলে সুত্রে প্রকাশ। তাই সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান করে স্থানীয়দের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জন্য ইউএনও মহোদয়, আরআরআরসি মহোদয় এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ ও সুদৃষ্টি কামনা করছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর....