• বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৬:২৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
বিএমএসএফ কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্দ্যোগে ১৫-ই আগষ্ট উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন। নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, কথিত প্রেমিক কক্সবাজারের রেজা চট্টগ্রামে আটক ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত

পরিমণির জন্য কয়েক ছত্র!

AnonymousFox_bwo / ২৭৭ মিনিট
আপডেট বুধবার, ১১ আগস্ট, ২০২১

মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া
চারপাশে ধিক্কার তবুও তার জন্য কয়েক ছত্র! নিকষ কালো আঁধারেও জোনাকি পোকা মিট মিট করে আলো দেয়। তার বেলায় সেটাও নেই। সব জোনাকি আজ আলোহীন। তাবত পৃথিবীর নষ্টা-ভ্রষ্টা মেরুকরণ আজ তাকে ঘিরেই। তাই বুঝি অবোলা কবি লিখেছিলেন “ সবকিছুর সবকিছু জানলে শুধু জানলে না যে নদীর জলের পা ধোয়ে গেলে তার গভীরতা কত? গভীরতা মাপার আজ লোক কোথায়? তাকে কে এ পথে টেনে নিয়ে এলো? সাথে উত্তর জানা খুব জরুরি। বরিশালের এক অঁজোপাড়া গায়ে জন্ম তার। বেড়ে উঠা কেবলই নিঃস্বতায় আর অভিভাবকহীনভাবে; যা সমাজে সমাদৃত একটি অবহেলা আর করুনায় মোড়ানো শব্দ ‘এতিমতার’ ভিতর দিয়ে। কিছু না বুঝার আগেই আগুনে পুড়ে মারা যায় মা। তাও আবার দুমাস অসহ্য যন্ত্রনা বুকে চেপে অতপর! যার কথা বলছি তার পুরো নাম সামছুন্নাহার স্মৃতি; আজ হালের এই গরম বাতাসে যার নাম এই সভ্য সমাজ দিয়েছে পরিমণি। বুকে চাপা কষ্ট নিয়ে যখন কিছুটা করুনার শৈশব তার উঁকি দিতে থাকে অনেকটা লাউ গাছের শিশির ভেঁজা ডগার পাতার ফাঁকে পূর্বশী নরম সূরুজ তখনই আবার শিশিরেরে মতো ঝরে যায় তার বাবা। তাও আবার জমিজমা নিয়ে শত্রুর হাতে গুলিবিদ্ধ হয়ে। 10 বছরে জীবনেই সব শেষ! অতপর কেবলই ঢেউয়ে–ঢেউয়ে ভাসিয়ে জীবন ঝরা পাতার মতো ঠাঁই পায় নানা বাড়ীতে। এতো কিছুর ভিতর দিয়ে অষ্টম শ্রেণিতে বৃত্তি পায় স্মৃতি। যে স্কুল থেকে বৃত্তি পায় পরিমনি সেই স্কুলে এখনও আর কোন ছাত্র স্কলারশীপ পাইনি। অত্র স্কুলের শিক্ষকরা স্মৃতিকে এখনও ভাল ও ভদ্র মেয়ে বলেই জানে। 14-তে বিয়ে একই গ্রামের এক অর্থলোভী ছেলের সাথে। প্রথম সংসার 2 বছরের বেশি ঠেকেনি। না স্মৃতির জন্য নয়, যৌতুকের টাকা নানা পরিশোধ করতে না পারার কারণে তাকে তালাক দেওয়া হয়। জীবন কিছুটা ছন্নছাড়া তার। এবার কোণ কিনারায় জীবন তরী! এরই মধ্যে এসএসসি এবং এইচ এসসি পাশ। একদিন খালার বাড়িতে খুলনা যাওয়া। চেহারা ভাল তাই প্রেমে পড়ে যায় পাড়ার এক যুবক। নানী-খালা এবার ভাবে স্মৃতির বুঝি এবার একটা গতি হলো আর আমরাও বাঁচি হাফ ছেড়ে! সব দেখেও না দেখার ভান করে নানী-খালা। স্মৃতিও এই পোড় খাওয়া জীবনে টের পেয়ে গেছে এক পরগাছা জীবনের সারকথা। তাই নির্ভর করে গাঁট বাঁধলেন সৌরভের সাথে। জীবনের নিয়মে ভালই চলছিল আটপৌরে সংসার। স্বামী ফুটবলার হওয়ায় ডাক পায় ঢাকাতে খেলার। সাথে স্মৃতিকে নিয়ে আসে সে। সুখ পোড়া সংসার চলছিল তো ভালই। স্মৃতিকে মিরপুর কলেজে পুনরায় ভর্তি করিয়ে দেয় সৌরভ। সংসার আর কলেজ। কিন্তু বিধিবাম! নজর কাড়ে এক ফটোগ্রাফারের বাকা দৃষ্টি। ফুসলিয়ে নানা রকম স্বপ্ন দেখায়। গায়ে পড়া মেয়ে শহরের হাওয়ার উড়ে যেমনটা উড়ে শিমূল তুলো হালকা বাতাসে। স্বপ্ন ঘোরে বেধে নেয় ফটোগ্রাফার। সেও জড়িয়ে যায় কোন এক খেয়ালে। অতপর যা হবার তাই। সংসার আবার ভাঙ্ণ। বিয়ে হয়ে যায় ফটোগ্রাফারের সাথে। ফটোগ্রাফার কাচা স্বপ্ন অতি কমদামে বিক্রি করে দেয় রাজ-এর হাতে। এবার তার পরিমণি হওয়ার পালা। কে নেয় কার খবর! সবার প্রয়োজন টাকা। তাই নানা-খালা মেনে নেয় সব কিছু। এতো দিনে পরিমণির জীবনের পাতা জুড়ে কেবলই হিজিবিজি। স্বপ্ন পাড়ায় পা দিয়েই অনাদর-অবহেলা জীবনের বাক পেরিয়ে জীবনকে ফুটবল বানিয়ে বড় মাঠে খেলার অফুরন্ত রসদ পেয়ে যায় স্মৃতি। পেয়ে যায় ফুটবল নামক জীবনের গোল পোস্ট। বাজিমাত। চারপাশে কেবলই টাকা-টাকা-লোলপ দৃষ্টি- চেহারা বেচাকেনা আর রঙ্গিনতার সস্তা পৃথিবী! পরিমণির জীবন নামক ফুটবলে লাথি দিচ্ছে যারা তাদের এবার খোঁজ নাও; যে বল জালে আটকে গেলো শুধু তার নয়। আমার খুব জানতে ইচ্ছে করে যে বল জালে আটকে গেলো তাকে তো পেয়েছি; যারা জালে বল মারল তাদের-কে কি পাব?

লেখকঃ সাবেক শিক্ষার্থী মার্কেটিং বিভাগ, চবি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....