• রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৩৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, কথিত প্রেমিক কক্সবাজারের রেজা চট্টগ্রামে আটক ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত উখিয়া স্পেশালাইজড হসপিটাল এ জনপদের চাহিদা, আশা-আকাঙ্ক্ষা পুরণে সক্ষম? নাকি শুধুই গতানুগতিক!

থানায় গিয়ে স্ত্রী জানলেন, স্বামী রাতে কোথায় যেতেন

AnonymousFox_bwo / ২৯৯ মিনিট
আপডেট সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

আইকন নিউজ ডেস্কঃ 

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে অতিরিক্ত যৌন উত্তেজক ওষুধ সেবনে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে যৌনপল্লীর এক পতিতার ঘরে এ ঘটনা ঘটে। মৃত ব্যক্তির নাম দেলোয়ার হোসেন বাবু। তার বাড়ি ঢাকার ওয়ারী এলাকায়। তিনি পেশায় একজন ইলেকট্রনিক ব্যবসায়ী।

জানা গেছে, দেলোয়ার হোসেন বৃহস্পতিবার রাতে যৌনপল্লীতে আসেন। বিভিন্ন স্থানে ঘোরাফেরা করে তিনি ভোর ৪টার দিকে পল্লীর আনোয়ারা বাড়িয়ালির ভাড়াটিয়া জ্যোৎস্না নামে এক পতিতার ঘরে প্রবেশ করেন।

এর আগে তিনি স্থানীয় এক দোকান থেকে যৌন উত্তেজক ওষুধ কিনে সেবন করেন। এতে প্রেসার বেড়ে গিয়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ভোর ৫টার দিকে তার অবস্থা বেগতিক হয়ে পড়লে যৌনকর্মী জ্যোৎস্না আশপাশের লোকজনকে ডাকাডাকি করেন। এ সময় কয়েকজন এসে তাকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

গোয়ালন্দ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক চন্দন কুমার জানান, দেলোয়ার হোসেন বাবু নামের ওই ব্যক্তিকে ভোরে হাসপাতালে আনা হয়। তবে হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়। পরে আমরা বিষয়টি পুলিশকে জানাই।

গোয়ালন্দ থানার এসআই দেওয়ান শামীম আহমেদ জানান, আমরা হাসপাতালে গিয়ে মৃত ব্যক্তির পকেট থেকে তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন উদ্ধার করে পরিবারকে খবর দিই। শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে মৃতের স্ত্রী, দুই ছেলেমেয়ে ও অন্যান্য স্বজন থানায় আসেন।

থানায় আলাপকালে দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী জানান, তার স্বামী হার্টের রোগী ছিলেন। তার বুকে রিং পরানো রয়েছে। কিছু দিন আগে অসুস্থ হয়ে সিসিইউতে চার দিন ভর্তি ছিলেন। তবে তিনি মাঝে মধ্যেই ব্যবসায়িক কাজের কথা বলে রাতে বাড়িতে ফিরতেন না।

গোয়ালন্দঘাট থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান,আমাদের ধারণা— অতিরিক্ত যৌন উত্তেজক ওষুধ সেবনের কারণে তিনি মারা গেছেন। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। সুত্রঃwww.daily-bangladesh.com


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....