• বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
বিএমএসএফ কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্দ্যোগে ১৫-ই আগষ্ট উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন। নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, কথিত প্রেমিক কক্সবাজারের রেজা চট্টগ্রামে আটক ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত

ভালোবাসার রঙ বদলায়, কারণে অকারণে

AnonymousFox_bwo / ২৫৬ মিনিট
আপডেট বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১

আইকন নিউজ ডেস্কঃ 

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চুটিয়ে প্রেম করে তারপর বিয়ে করেছিলেন তাহসান মিথিলা, দুজনের মধ্যে ভালোবাসার ছিলনা কোনো কমতি।
মিডিয়া জগত এবং সকল তরুন-তরুনীর কাছেই অনেকটা আইডল ছিলেন দুইজন।

অথচ এতো ভালোবাসার পরেও বিয়ের ১১ বছরের মাথায়,
তাদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়, আর কারণ হিসেবে দুজনের কথাই ছিল তাদের নাকি দুইজনের মিল হচ্ছিল না।
আসলে ভালবাসার রং বদলায় কারণে অকারণে।

একবার সুবর্ণা মোস্তফার সাথে তুমুল ঝগড়া হয়েছিল হুমায়ুন ফরিদের।
সেই রাতে রাগ করে তারা দুইজনে একসাথে ঘুমাননি, সুবর্ণা মোস্তফা অন্য একটি কক্ষে গিয়ে দরজা আটকিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন।
সকালে ঘুম থেকে বাহিরে এসে দেখেন যে কক্ষে দুইজনের ঝগড়া হয়েছিল।

সেই কক্ষের মেঝেতে সব জায়গাতেই একটি কথায় লেখা সুবর্ণা আমি তোমাকে ভালোবাসি।
দুজনের মধ্যে এতো ভালোবাসাও ঠেকাতে পারেনি তাদের বিচ্ছেদ।
2008 সালে তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।
কারণ ভালোবাসার রং বদলায়, কারনে অকারনে।

জীবনানন্দ দাশ লিখে ছিলেন, নক্ষত্রেরাও একদিন মরে যাবে ।
এই জীবনানন্দ দাশ কে, প্রথম দেখেই বিয়ের পিঁড়িতে বসেছিলেন লাবণ্য প্রভা।
সাহিত্যের কাছ থেকে যোজন যোজন দূরে থেকেও, সাহিত্যের ইতিহাসের প্রজ্বলিত উজ্জ্বল নক্ষত্র।
এই লাবণ্য বিয়ের কিছুদিন পরেই মনে হচ্ছিলো যে তার স্বাধীনতা হারিয়ে যাচ্ছে।
মুক্তির নেশায় দুর্বিষহ হয়ে তিনি পাগল হয়ে যাচ্ছিলেন, এলোমেলো হয়ে ওঠে দুজনের জীবন, আর এভাবেই তাদের ভালোবাসার এক সময় মৃত্যু হয়।

মাত্র ক্লাস টেনে পড়া অবস্থায় বড়লোকের মেয়ে গুলতেকিন হুমায়ূন আহমেদ কে তিনি বিয়ে করে ছিলেন । বিয়ের পর তিনি জানতে পেরেছিলেন গল্প আর কবিতা হুমায়ুনের সাথে বাস্তবের হুমায়ুনের তেমন কোনো মিল নেই। বাস্তব জীবনে হুমায়ুন ছিলেন একদমই সাধারন একজন মানুষ।

তার মধ্যে ছিল না আহামরি কোনো কিছু, অন্য আর দশটা ছেলের মতোই সাধারণ ভালোবাসা ছিল তার।
আর নিজের মনের মতন না হওয়ায়, গুলতেকিন অনেকটা আক্ষেপ নিয়েই হুমায়ূনকে বলেছিলেন ।তোমার লেখায় ভালো অন্য কিছু ভালো না !

আসলে ভালবাসার রং বদলায় কারণে অকারণে।
নন্দিতা রায়ের বেলাশেষের সিনেমায়, এই কঠিন ব্যাপারটা খুব সহজভাবে বোঝানো হয়েছে ।
হাতের উপর হাত রাখা খুব সহজ, সারা জীবন বইতেপাড়া সহজ নয়।

সহজ না হওয়ার কারণ ওই একটাই, ভালোবাসার রং বদলায় কারণে অকারণে।
আসলে প্রেম ভালোবাসার সহজলভ্যতা এই পৃথিবীতে সবথেকে বিরল দুটি জিনিস মনের মানুষ এবং মানুষের মন।

এই দুটো এর উপর বিশ্বাস থাকা ভালো উচিতো বটে তবে সেটা কেবলি নিজের মধ্যে।
কখনো অতি আত্মবিশ্বাসী না করে বড়াই দেখানো ভালো নয়।
কারন হাওয়ার দিক পরিবর্তন হয় কখন কোন দিকে বয়ে যায় সেটা সর্বদায় অনিশ্চিত। হোক সেটা প্রকৃতির হাওয়া বা মনের।
আসলে ভালবাসার রং বদলায় কারণে অকারণে!


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....