• বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০২:৫৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ইউপি নির্বাচন এবং সমাজে তথাকথিত ইয়াবা সংশ্লিষ্ট কোটিপতি তকমাদারীর সামাজিক অবস্থান ! ঘুংধুম আজুখাইয়ায় বাল্য বিয়ের বলী হলেন হুমায়রা নামক এক গৃহবধু উখিয়ায় ষোড়শীর বিষপান, স্ত্রীকে হাসপাতালে রেখে স্বামীর পলায়ন উখিয়ায় মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ড || সন্দেহজনক এক আরসা নেতা নাইক্ষ্যংছড়িতে গ্রেফতার ইউপি নির্বাচনের প্রার্থিতা নিয়ে সংঘর্ষ, নিহত ৪ অপহরণের ৪ দিন পর রোহিঙ্গা যুবক উদ্ধার উখিয়ায় মর্মান্তিক ট্রাক দুর্ঘটনায় হেল্পার নিহত, ড্রাইভার আহত মরিচ্যা চেকপোস্টে সাড়ে ৮২ হাজার ইয়াবাসহ আটক ৬ উখিয়া উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক ঘোষিত ষ্টেশন ও বাজার সম্বলিত সড়ক, মহাসড়কে সৃষ্ট যানজট নিরসনে দৃশ্যমান কোন অগ্রগতি নেই । আজকের দিনে সাংবাদিক হওয়া কঠিন, বিপজ্জনক: মারিয়া রেসা

ইউপি নির্বাচনের হাওয়া…. পালংখালী চেয়ারম্যান প্রার্থী ইন্জিনিয়ার রবিউল হোসেনের ১০ ইশতেহার ঘোষণা

admin / ২৯৬ মিনিট
আপডেট শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

 

মারজান চৌধুরী
আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত‍্যাশী ঘোষণা দিয়েছেন ৫ নং পালংখালী ইউনিয়নের অরাজনৈতিক সংগঠন অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক ইন্জিনিয়ার রবিউল হোসেন।গত ২৩ শে সেপ্টেম্বর যোগাযোগের মাধ্যম পেইজ বুক আইডিতে বলেন, “দয়াকরে সবাই পড়ুন এবং মন্তব্য করুন” তাই কিছু বাস্তবতা সাধারণ মানুষের জানা দরকার এবং জানানো দরকার…

বাংলাদেশের প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে যে সেবা আমাদের পাবার কথা তা কি আমরা পাচ্ছি? ইউনিয়ন পরিষদ স্হানীয় সরকারের মজবুত ও শক্তিশালী একটি প্রতিষ্ঠান। সরকারের পাশাপাশি বিশ্ব ব্যাংকও বড় অনুদান প্রদান করে থাকে ইউনিয়ন পরিষদে। আয়তন, লোকসংখ্যা ও লোকেশন বিবেচনায় বিশ্ব ব্যাংকের এলজিএসপি৩ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিটি ইউনিয়নে বছরে ২৫ লাখ থেকে ১কোটি টাকা পর্যন্ত দিয়ে থাকে। উল্লেখ্য যে, এই টাকাগুলো কোন রকম ঝক্কি-ঝামেলা ছাড়াই ইউপিগুলোতে চলে আসে। ইট-ঢালাই, রাস্তা,কালভার্ট,বাচ্চাদের স্কুল ব্যাগ, প্রাচীর, বেসরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য আধুনিক মানের ড্রেসিং/বাথরুম বানানো/এমন আরো হরেকরকম কাজে ব্যয় করা যায় এই টাকাগুলো। নরমাল হিসেব করলেও প্রতিজন চেয়ারম্যান শুধু বিশ্ব ব্যাংক থেকে ৫ বছরে পায় দেড় থেকে দুইকোটী টাকা। যে টাকা দিয়ে অনায়াসে একটা ইউনিয়ন সুন্দর ভাবে সাজানো সম্ভব। তারপর আরো আছে যেমনঃ- কর্মসৃজন প্রকল্প থেকে ৩৫-৪০ লাখ টাকা, এডিবি ১২-১৪ লাখ টাকা , কাবিটা ১০-১২ লাখ টাকা, কাবিখা ১০-১২ লাখ টাকা ইত্যাদী। বন্যার বাঁধ উন্নয়নে পিআইসি’র টাকা বাদেও আরো অসংখ্য বরাদ্দ আসে ইউনিয়ন পরিষদে। বিভিন্ন দুর্যোগ-মহামারীতে আসে বিশেষ বরাদ্দের নামে তাৎক্ষণিক খরচের টাকা। এটাও প্রকারভেদে আকারে হয় অনেক মোটা এবং তাজা।
একজন ইউপি চেয়ারম্যানের স্বদিচ্ছা আর মানুষের প্রতি ভালবাসা দায়বদ্ধতা থাকলে তিনি নিজ ইউনিয়নের আওতাধীন প্রায় সকল রাস্তাসহ জনদূর্ভোগে লাঘবে ছোট ছোট সকল সমস্যার সমাধান সরকারী ফান্ড থেকে করে দিতে সমস্যা হওয়ার কথা নয়।
কিন্তু বাস্তবতা কি?
আমরা কি ইউপি থেকে সেই কাঙ্খিত সেবা পাচ্ছি?
সরকারকে দোষারোপ করলেও সরকার থেকে ইউনিয়ন পরিষদে কি পরিমাণ বরাদ্দ আসে তার খবর কি আমরা নিতে পারছি? আমরা কি আমাদের মনের মতো চেয়ারম্যান/জনসেবক বানাতে আদৌ কি সক্ষম হচ্ছি?

সমাগত ইউপি নির্বাচন ২০২১ এ যারা চেয়ারম্যান পদ প্রত‍্যাশী হবেন সবাই আমার চেয়ে যোগ‍্য, তাদের মধ্যে একমাত্র আমিই নগন‍্য। ৫নং পালংখালীবাসী তাদের মূল‍্যবান ভোট দিয়ে আমাকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত করলে আল্লাহকে স্বাক্ষী রেখে কথা দিচ্ছি একবছরের মধ্যে আমার নিম্নোক্ত ইশতেহার বাস্তবায়ন করব ইনশাআল্লাহ।

১। ৫নং পালংখালী ইউনিয়নকে শতভাগ মাদকমুক্ত করা।
২। প্রতিটি পরিবারকে স্বাবলম্বী করা এবং প্রতি পরিবারে অন্তত একজনের চাকুরী নিশ্চিত করা।
৩। যানজটমুক্ত ও সার্বিক নিরাপত্তার জন্য একটি কমিউনিটি পুলিশ টিম গঠন করা এবং সিসি ক‍্যামেরার মাধ্যমে পুরো ইউনিয়নকে মনিটরিং করা।
৪। ফ্রি চিকিৎসা সেবার জন্য একটি আধুনিক মানের হাসপাতাল নির্মাণ করা এবং ২৪ ঘন্টা ফ্রি এম্বুলেন্স সার্ভিসের ব‍্যবস্থা করা।
৫। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী এনজিওর বরাদ্দের ২৫-৩০% এর সঠিক বাস্তবায়ন ও সচ্ছতা নিশ্চিত করা।
৬। এইচএসসি পযর্ন্ত মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বিনা খরচে পড়াশোনার ব‍্যবস্থা করা।
৭। দূর্নীতি রোধে ও চেয়ারম্যানের স্বেচ্ছাচারিতা রোধে সমাজের শিক্ষিত গুনীজনদের সমন্বয়ে একটি উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করা।
৮। ইউনিয়নের আওতাধীন প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার গুণগত মান বজায় রাখতে কমপক্ষে দুইজন করে শিক্ষকের দায়িত্ব নেয়া এবং শিক্ষা ব্যবস্হা শতভাগ অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে করোনায় ক্ষতিগ্রস্হ নূরানী, বেসরকারি স্কুল-মাদ্রাসা ও কেজি স্কুল সমূহকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা।
৯। ইউনিয়নের আওতাধীন প্রতিটি কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম ও মোয়াজ্জিনের মাসিক বেতন ইউনিয়ন পরিষদ থেকে দেওয়া।
১০। জনদূর্ভোগ লাঘবে যাতায়াত ব‍্যবস্থার উন্নয়ন করা এবং ছাত্রছাত্রী ও সচেতন মানুষের অলস সময় পার করতে মানসম্মত তিনটি পাঠাগার নির্মাণ করা (বালুখালী, থাইংখালী, পালংখালী)।
পেইজে ইন্জিনিয়ার রবিউল হোসেন নির্বাচনী ইশতেহার দেয়ার পর অনেকেই কমেন্টের মাধ্যমে বলেন এই ইশতেহার বাস্তবায়ন হলে সমাজ ও ইউনিয়ন পরিবর্তন হবে এবং উগ্রবাদী জাতি রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের হাত থেকে নিরাপত্তার বেষ্টনীতে নিরাপদ থাকবে।

আইকন নিউজটুডে /আর/২৪০৯২০২১


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর....