• রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৯:১৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, কথিত প্রেমিক কক্সবাজারের রেজা চট্টগ্রামে আটক ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত উখিয়া স্পেশালাইজড হসপিটাল এ জনপদের চাহিদা, আশা-আকাঙ্ক্ষা পুরণে সক্ষম? নাকি শুধুই গতানুগতিক!

ঘুংধুম আজুখাইয়ায় বাল্য বিয়ের বলী হলেন হুমায়রা নামক এক গৃহবধু

AnonymousFox_bwo / ২৯১ মিনিট
আপডেট সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১

আইকন নিউজ ডেস্কঃ 

কক্সবাজারের উখিয়ায় বিয়ে উপলক্ষে তৈরিকৃত আসবাবপত্রের পছন্দ অপছন্দকে কেন্দ্র করে এবং শ্বশুর বাড়ির কটু কথা সহ্য করতে না পেরে বিষপান করে আত্মহত্যার চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া যায়।উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের তেলখোলা এলাকায় গত ১৬ অক্টোবর(শনিবার) বিকাল ৪টা নাগাদ উক্ত ঘটনা সংঘটিত হয়।

নিহতের পৈত্রিক পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়,বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের উত্তর ঘুমধুম আজুখাইয়া গ্রামের মোঃ আলম মাহাদুর ষোড়শী কন্যা হুমায়রা বেগম (১৪) এর সাথে,উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের তেলখোলা গ্রামের সোলতান আহমদের ছেলে মো.আবদুল্লাহ’র(১৭) সাথে ইসলামী শরীয়াহ মতে সামাজিক ও পারিবারিক ভাবে গত সাড়ে ৩ মাস পূর্বে বিয়ে হয়। ইতিমধ্যে জানা যায়, একপ্রকার জোর করে বাল্য বিয়ে কোনপ্রকার রেজিষ্ট্রেশন ছাড়া, কামিনবিহীন শুধু তিনশত টাকার স্ট্যামমুলে বিয়ে করা হয়।

উক্ত প্রতিবেদক সরেজমিনে জানতে পারেন, গত কিছুদিন পূর্বে হুমায়রা তার বাপের বাড়ি বেড়াতে( নায়র) গেলে, একসপ্তাহ অবস্থান করেন। এক সপ্তাহের মধ্যে তাদের বিয়ে উপলক্ষ্যে তার বাবা যে আসবাবপত্র তৈরি করেন, যা সেকেলে ও পুরাতন ডিজাইনের বলে হুমায়রার পছন্দ করেননি। এ নিয়ে তার বাবা ও ভাইয়ের সাথে তর্ক জুড়ে দিলে তার বাবা ও বড়ভাই তাকে বকাবকি ও একপর্যায়ে মারধর করে রক্তাক্ত করেন। গত ৬ অক্টোবর-২১ তারিখে বাবার বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়ি হুমায়রা চলে যান। ইতিমধ্যে হুমায়রার দাদা শ্বশুরের বার্ষিক ফাতেহা উপলক্ষে তার (সৎ) মা, দাদী ও বোন বেড়াতে গিয়ে খাওয়া দাওয়া শেষ করে হাসি খুশিতে তাদের বাড়ি আজুখাইয়ায় চলে আসেন। হুমায়রা তার শ্বশুর বাড়িতে অবস্থানকালে তার দাদী ও সৎ মাকে সেই পুরনো মডেলের আসবাবপত্রের ব্যাপারে আপত্তি জানালে এবং নতুন করে আসবাব পত্র তৈরি করে দেবার আবদার করলে, যা সেই আবদারের কথা তার বাবাকে জানাতে বলেন। তার বাবা ফোনে আসবাবপত্র নতুনভাবে তৈরি করে দিতে অপারগতা জানালে, রাগে, ক্ষোভে আত্মহত্যার মত জঘন্য কাজে নিজকে জড়িয়ে ফেলে বলে খবর পাওয়া যায়।

আইকন নিউজটুডে/আর/১৮১০২০২১


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....