• বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৮:১৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
বিএমএসএফ কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্দ্যোগে ১৫-ই আগষ্ট উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন। নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, কথিত প্রেমিক কক্সবাজারের রেজা চট্টগ্রামে আটক ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত

৩৪ বছর পর নৌকায় চড়েই ডুবলেন কাদের

AnonymousFox_bwo / ২২৬ মিনিট
আপডেট বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১

আইকন নিউজ ডেস্কঃ 
আব্দুল কাদের।আব্দুল কাদেরের বয়স ৭০ বছর। বয়সের অর্ধেক ৩৪ বছর ধরে তিনি একনাগাড়ে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। এবারও চেয়েছিলেন চেয়ারম্যান পদের বয়সটা আরও বাড়িয়ে নিতে। এ জন্য প্রথমবারের মতো নৌকায় চড়েছিলেন তিনি। আর এবারই কিনা হেরে বসলেন তিনি। ফলে এলাকার মানুষ বলছে, নৌকায় চড়েই ডুবলেন কাদের!

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের মদাতী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ছিলেন কাদের। গত রোববার অনুষ্ঠিত ভোটে পরাজিত হয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, আব্দুল কাদের কালীগঞ্জের ভোটমারী উচ্চবিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। ১৯৮৮ সালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে হারিকেন প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তিনি। এরপর থেকে একটানা ৩৪ বছর দখলে রাখেন চেয়ারম্যান পদটি।

দলীয় ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জাতীয় পার্টির স্থানীয় সংসদ সদস্য প্রয়াত মজিবর রহমানের সঙ্গে আব্দুল কাদেরের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল। ২০০২ সালে তৎকালীন উপমন্ত্রী ও জেলা বিএনপির সভাপতি আসাদুল হাবিব দুলুর হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিএনপিতে যোগ দেন তিনি। বিএনপি ক্ষমতা হারানোর পর দীর্ঘদিন নিষ্ক্রিয় থেকে ২০১৫ সালে তৎকালীন প্রতিমন্ত্রী ও বর্তমান সমাজকল্যাণমন্ত্রী নূরুজ্জামান আহমেদের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেন তিনি। বাগিয়ে নেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি পদ। ২০১৬ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেও তিনি জিতেছিলেন। পরাজয়ের গ্লানি ছিল না তাঁর দীর্ঘ জীবনে। অথচ এবার প্রথমবার নৌকার মাঝি হয়ে হেরে বসলেন।

স্থানীয়দের মতে, বিগত নির্বাচনের চেয়ে এই নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণায় প্রচুর খরচ করেছেন আব্দুল কাদের। এটা ভোটাররা ভালোভাবে নেননি। তা ছাড়া, মদাতী ইউনিয়নে নৌকাবিরোধী ভোট বেশি থাকায় ব্যক্তি পছন্দের হলেও প্রতীকের কারণে পরাজিত হয়েছেন আব্দুল কাদের।

পরাজয় বিষয়ে আব্দুল কাদের আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘ভেবেছিলাম সরকারি দলের প্রতীক পাওয়ায় উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জনগণ আগের চেয়ে বেশি ভোট দেবেন। কিন্তু বাস্তবে ঘটেছে উল্টো। নৌকা প্রতীক দেওয়া হলেও আমার পাশে দাঁড়ায়নি স্থানীয় আওয়ামী লীগ। আর নৌকা প্রতীকের কারণে অধিকাংশ সাধারণ ভোটার আমাকে ভালোবাসলেও নৌকায় ভোট দেননি। তাই পরাজয় ঘটেছে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....