• রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৯:২৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, কথিত প্রেমিক কক্সবাজারের রেজা চট্টগ্রামে আটক ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত উখিয়া স্পেশালাইজড হসপিটাল এ জনপদের চাহিদা, আশা-আকাঙ্ক্ষা পুরণে সক্ষম? নাকি শুধুই গতানুগতিক!

নীতি নির্ধারকরা কতটুকু গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসালে-শুধু ঢাকার শিক্ষার্থীদের বাসের ভাড়া অর্ধেক নির্ধারন করে

AnonymousFox_bwo / ২০২ মিনিট
আপডেট শনিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২১

 

আইকন নিউজ ডেস্কঃ 
‘All are equal in the eyes of law’ আইনের চোখে সবাই সমান-আসলেই কি তাই? বিশেষ করে আমাদের মত তৃতীয় বিশ্বের দেশে আইন কখনও সবার জন্য সমান হয়ে উঠে না! আইন বা আইনের ভাষা বা আইনের প্রয়োগ সোস্যাল স্টাটাসের ভিত্তিতে ভিন্ন হয়, হয় রঙ পরিবর্তিত। Equility (সমান সুযোগ) এবং Justice ( ন্যায় বিচার) কিন্তু এক কথা নয়। অনেক ক্ষেত্রে সমান সুযোগ প্রাপ্ত হওয়া মানে সামাজিক ন্যায় বিচার প্রাপ্ত হওয়া ‘মিন’ করে না। উদাহরণস্বরুপ বলা যায়, যদি বলা হয় দু’জন ব্যক্তিকে একটি নারকেল গাছের নারকেলগুলো (দু’জনকে) সমান ভাগে ভাগ করে নিতে বলা হল কিন্তু তাদের মধ্যে একজন গাছে চড়তে জানে, অন্যজন জানে না। সেক্ষেত্রে সমান সুযোগ প্রাপ্ত হয়েও যিনি গাছে চড়তে জানেন না তিনি কিন্তু সামাজিক ন্যায় বিচার পায়নি কারন সে তো গাছেই চড়তে জানে না নারকেল পাবে কিভাবে? তাই justice বা ন্যায় বিচার হবে নারকেলগুলো পেড়ে দু’জনের মধ্যে হিস্যা করা বা ভাগ করে দেওয়া, যাতে দু’জনই ন্যায়বিচার প্রাপ্ত হয়। ঠিক তেমনি, সমানাধিকার প্রাপ্ত হওয়া মানে -সামাজিক ন্যায়বিচার প্রাপ্ত হওয়া নয়!

বলছিলাম কি, ঢাকা শহরে শিক্ষার্থীদের বাস ভাড়া হাফ বা অর্ধেক করা প্রসংগে। ঢাকায় হাফ করা হলে দেশের অন্যান্য অঞ্চলের ছাত্র/ছাত্রী বা শিক্ষার্থীরা সেই সুযোগ পাবে না এ কেমন বিচার? এক দেশে দুই আইন কেন? একই দেশে একই আইন দুই জায়গায় ভিন্ন হবে কেন? শুধু রাজধানীর জন্য অর্ধেক ভাড়া, দেশের অন্য এলাকার জন্য নয়, যা একটি বৈষম্যমূলক সিদ্ধান্ত বলে আমি মতো নে করি। ঢাকার বাইরের যানবাহনের কি ফুয়েল মুল্য বাড়ায়নি বা বাসের ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়নি? নাকি ঢাকার বাইরের শিক্ষার্থীদের আর্থিক স্বচ্ছলতা বা সক্ষমতা বেশি? আমার তো মনে হয়, ঢাকার বাইরের শিক্ষার্থীদের আর্থিক সক্ষমতা বলেন বা স্বচ্ছলতা বলেন ঢাকার ছাত্র/ছাত্রীদের তুলনায় অনেকাংশে কম। তাই শুধু ঢাকার শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কোনভাবেই গ্রহনযোগ্য নয়।

স্বাধীনতা পুর্ব পাকিস্তান আমলে এরকম বৈষম্যমূলক আচরণ ও সিদ্ধান্ত পূর্ব পাকিস্তান ও পশ্চিম পাকিস্তানের মধ্যে লক্ষনীয় ছিল। পাকিস্তান আমলে, শুধু পশ্চিম পাকিস্তানের শিক্ষার্থীদের জন্য বাসে হাফ ভাড়ার সুযোগ ছিল, পুর্ব পাকিস্তানের শিক্ষার্থীদের ছিলনা। যার কারণে পূর্ব পাকিস্তান তথা বাংলাদেশ অংশের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন করে তা আদায় করতে হয়েছিল। কিন্তু বিবেকের প্রশ্ন- একটি স্বাধীন সার্বভৌম গণতান্ত্রিক দেশে এরকম বৈষম্যমূলক সিদ্ধান্ত থাকতে পারে কি? ঢাকার বাইরের শিক্ষার্থীদের কি হাফ ভাড়ার সুবিধা ভোগের অধিকার নেই? নাকি দেশের সব কোটিপতিদের ছেলেমেয়েরা ঢাকার বাইরে বসবাস করে? ঢাকায় শুধু গরিব পরিবহন মালিক ও গরিব শিক্ষার্থীদের বসবাস? আর যারাই এমনই আজগুবি সিদ্ধান্তে পৌছান তাদের মাথায় এরুপ বৈষম্যমূলক চিন্তা বা সিদ্ধান্ত আসে কিভাবে? নীতিনির্ধারকরা ক্যামন গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসালে, এমন বৈষম্যমূলক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারেন তা বলাই বাহুল্য!


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....