• বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৯:৩৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
তথাকথিত কোটিপতি তকমাদারীর আয়ের উৎস ও সামাজিক অবস্থান এবং মাদক প্রতিরোধে প্রশাসনিক দুর্বলতার ছাপ! মানবিকতার জঘন্যতম দৃষ্টান্ত স্থাপনে কক্সবাজারে আলাদা রাষ্ট্র প্রতিষ্টার চেষ্টায় রোহিঙ্গারা। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হাসপাতাল নয়, যেনো এক একটি রোহিঙ্গা প্রজনন কেন্দ্র। সমুদ্রের পানির উচ্চতা ঝুঁকিতে ‘বিশ্ব’ ও ‘বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চল’। মধ্যপ্রাচ্যের ‘ক্যান্সার খ্যাত’ ইসরাইল রাষ্ট্রের উভ্যূদয় ও রোহিঙ্গা জনগোষ্টির ‘স্বাধীন রাষ্ট্র’ স্বপ্ন ও বাস্তবতা রোহিঙ্গা সমাস্যা’ যা বাংলাদেশের গোঁদের উপর বিষফোঁড়াঃ একটি পর্যালোচনা। প্রেক্ষাপটঃ তৈল বিদ্যার তেলেসমাতি–যার প্রভাবে বর্তমান পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রে ত্রাহি ত্রাহি ভাব! বাজার নিয়ন্ত্রণ, মিথ্যার বেসাতি আর গোল খাওয়া পাবলিক ইসলামিক ‘রোজা’ ও বৈজ্ঞানিক ‘অটোফেজি’ শব্দের অর্থ, সাদৃশ্য ও বৈসাদৃশ্য। উখিয়া ভুঁইয়া ফাউন্ডেশন কর্তৃক মোটর সাইকেল শোভাযাত্রা, ঈদ পুর্ণমিলন ও বীচ ফুটবল খেলা সম্পন্ন।

#নারী ও শক্তি!

AnonymousFox_bwo / ১০৭ মিনিট
আপডেট মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০২২

 

অন্য অঞ্চলের এক হুজুর
নদীর পাড় দিয়ে হেঁটে
যাচ্ছিলো। হঠাৎ চোখ পড়লে।
নদীর কলস ভর্তি পানি তুলছে
এক সুন্দরী যুবতী।
:
হুজুর যুবতীর কাছে গিয়ে
জিজ্ঞাসাঃ মা, জননী
আপনাকে একটা কথা
জিজ্ঞাসা করবো?
:
যুবতীঃ কি জিগাইবেন?
জিগান।……।
:
হুজুরঃমা, আমি শুনছি
মহিলাদের এমন শক্তি,
কৌশল ও ছলনা আছে,,
তা দিয়া বাদশারে ফকির,
বীরকে ভীরু,
আলেমকে জাহেল,
পাথরকে মোম
বৃদ্ধকে যুবক বানাইয়া
ইচ্ছা মত খেলতে পারে।
এইডা কি সত্য?
:
হুজুরের কথা শুনে যুবতী
কলসটা ডাঙ্গায় রেখে,
চুলগুলো এলোমেলো করে
চিৎকার করে বললোঃ
আমারে বাঁচাও,
আমারে বাঁচাও………………।.
:
মেয়েটির চিৎকার শুনে
গ্রাম্যাসীরা বল্লম,লাঠিসোঠা
নিয়ে দৌঁড়ে নদীর পাড়ে দিকে
আসছিলো। হুজুর এই দৃশ্য
দেখে কাঁদতে কাঁদতে বললোঃ
মা, জননী
আমিতো আপনারে কোনো
খারাপ কথা কৈ নাই।
ওরা আমারে মাইরা ফালাইবু।
আপনি বাঁচান গো জননী।
:
যুবতী তাড়াতাড়ি হুজুরকে টান
দিয়ে নদীতে ঝাপ দিলো।
তারপর মেয়েটি হুজুরকে নিয়ে
পাড়ে উঠে কাঁদতে কাঁদতে
গ্রামবাসীকে বললোঃ আমি গাঙ্গে
পানি লাওনের সময়। রাক্ষুস আমার
পা ধইরা টানবার লাগছিলো।
হুজুর আমার চিৎকুর হুইন্না।
সুরা পড়তে পড়তে
ঝাপ দিয়া আমারে ডাঙ্গায় তুলছে।
হুজুর না থাকলে রাক্ষুস আমারে
খাইয়া ফালাইতো।

গ্রামবাসীরা হুজুরকে কাঁধে তুলে
নাচঁতে নাচঁতে গ্রামে চক্কর মেরে
খাসি জবাই করে আনন্দ উৎসব।

হুজুর মনে মনে বলছেঃ অক্ষন
বুঝার পারছি আদম (আঃ) গন্ধম
খাইছিলো ক্যারে?


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর....