• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত উখিয়া স্পেশালাইজড হসপিটাল এ জনপদের চাহিদা, আশা-আকাঙ্ক্ষা পুরণে সক্ষম? নাকি শুধুই গতানুগতিক! ফেসবুকে পরিচয় ও প্রেম-অতপরঃ এক কলেজ শিক্ষিকাকে কলেজ ছাত্রের বিয়ে!

হাইড্রোজেন পার অক্সাইডের আগুন পানিতে নেভে না

AnonymousFox_bwo / ৮০ মিনিট
আপডেট সোমবার, ৬ জুন, ২০২২

ড. মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন-অধ্যাপক, রসায়ন বিভাগ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

হাইড্রোজেন পার অক্সাইড (এইচটুওটু) একটি শক্তিশালী জারক পদার্থ, যার বৈশিষ্ট্য হলো অপরকে অক্সিজেন দিয়ে রাসায়নিক পরিবর্তন ঘটায়। আমরা জানি অক্সিজেন আগুন জ্বালাতে সাহায্য করে। তাই হাইড্রোজেন পার অক্সাইড অক্সিজেনের অনুপস্থিতিতেও আগুনকে তীব্রতর করতে সাহায্য করে। ফলে এটি অতি উচ্চহারের দাহ্য পদার্থ হিসেবে পরিচিত। হাইড্রোজেন পার অক্সাইড আগুনকে পানি দিয়ে নিভানো যায় না। এ তথ্যগুলো জানান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন।

রাসায়নিক বিশেষজ্ঞ ড. ইসমাইল হোসেন জানান, পানির মূল উপাদান অক্সিজেন ও হাইড্রোজেন। হাইড্রোজেন পার অক্সাইডের জারণ ধর্মের কারণে এটি পানি থেকেও অক্সিজেন বিমুক্ত করে এবং আগুনকে করে আরও তীব্রতর। ফলে হাইড্রোজেন পার অক্সাইড থেকে আগুন লাগলে সেখানে কোনোভাবেই পানি ছিটানো যাবে না। কার্বন-ডাই অক্সাইড অথবা হ্যালোজেন-সমৃদ্ধ অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র এ ধরনের আগুনে স্প্রে করলে দ্রুত ফল পাওয়া যায়। ড্রাই পাউডার অগ্নিনির্বাপক স্প্রে (এল২, এম২৮ লিথিয়াম পাউডার) ওপর থেকে প্রয়োগ করেও অক্সিজেনের সমৃদ্ধতা কমিয়ে আগুন নিভানো যায়। কেননা এল২, এম২৮ হলো লিথিয়াম, ম্যাগনেশিয়ামের শুষ্ক পাউডার; যা অক্সিজেনের সঙ্গে দ্রুততার সঙ্গে বিক্রিয়া করে আগুনের উৎসের অক্সিজেনের অভাব ঘটায় এবং আগুনের তীব্রতা হ্রাস করে। এসব পাউডার স্প্রে আকারে বাজারে পাওয়া যায়।

হাইড্রোজেন পার অক্সাইডের ব্যবহার প্রসঙ্গে তিনি জানান, এন্টিসেপটিক হিসেবে ব্যবহার হয় বলে এই রাসায়নিকটি ওষুধশিল্পে ব্যাপক কাজে লাগে। এটি ভালো পরিষ্কারক; তাই স্যানিটেশনে ব্যবহৃত বিভিন্ন লোশন, ক্রিম, টুথপেস্টে ব্যবহার হয়। তৈরি পোশাকশিল্পে ওয়াশিং কাজেও এটি জারক হিসেবে প্রচুর ব্যবহৃত হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....