• বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৯:৪৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
উখিয়ায় বিশেষায়িত হাসপাতাল উদ্বোধন করেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী উখিয়ায় অবৈধ টমটম, সিএনজি ও অটোরিকশার বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান শুরু উখিয়া খাদ্য গুদাম গত বুরো মৌসুমে ১ কেজি ধান সংগ্রহ করতে পারেনি ক্ষুধার যন্ত্রণায় শিশুর কান্নায় অতীষ্ট হয়ে গলা টিপে হত্যা করলেন মা! রাঙ্গুনীয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকের ৪ সন্তান‌ই বুয়েট শিক্ষার্থী! জামিন নিতে পিস্তল নিয়েই এজলাসে আসামি আজ উখিয়ায় উখিয়া বিশেষায়িত হাসপাতাল এর শুভ উদ্বোধন পুলিশের দাবি, প্রতি মাসে ১২০ কোটি টাকার ইয়াবা আনেন ধৃত রোহিঙ্গা শফিউল্লাহ মক্কা মদিনার মতো গোপালগঞ্জ আসলে শান্তি অনুভূব করি-সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালেদ। ইউরোপিয়ান জার্নালিস্ট নেটওয়ার্কের সভাপতি জামান, সাধারণ সম্পাদক অনুরূপ

দ্রুত প্রত্যাবাসনের দাবিতে রোহিঙ্গাদের ‘চলো চলো আরকান চলো’ ক্যাম্পেইন ও সমাবেশ

AnonymousFox_bwo / ৩২ মিনিট
আপডেট রবিবার, ১৯ জুন, ২০২২

দ্রুত প্রত্যাবাসনের মাধ্যমে নিজ ঘরের ফেরার দাবিসহ ৭ দফা দাবিতে ‘চলো চলো আরকান চলো’ ক্যাম্পেইন শুরু করেছে কক্সবাজারের ক্যাম্পগুলোতে বসবাসরত রোহিঙ্গারা। ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে আজ রোববার সকালে ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত উখিয়া-টেকনাফের বিভিন্ন ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত হয়েছে পৃথক সমাবেশ। যেখানে সমবেত হয় বিপুলসংখ্যক রোহিঙ্গা। এসব সমাবেশ থেকে বাড়ি ফিরতে ৭টি দাবি উত্থাপন করেন তাঁরা।

উখিয়ার লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প ১ ইস্টের একটি খেলারমাঠে আয়োজিত এক সমাবেশে রোহিঙ্গাদের পক্ষে বক্তব্যরাখেন, প্রয়াত রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহর সংগঠন ‘আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিচ অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের’ সদস্য ডাক্তার জুবায়ের ও মাস্টার কামাল, রোহিঙ্গা অধিকারকর্মী মাস্টার ইউসুফ ও নুরুল আমিন।

বক্তব্যে রোহিঙ্গা নেতা ডাক্তার জুবায়ের বলেন, রোহিঙ্গারা আর এক মুহূর্তও বাংলাদেশে থাকতে চায় না। যে কোনো উপায়ে দ্রুত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন করতে হবে। মিয়ানমারে অন্যান্য জাতিগুলোর জন্য যেসব সুযোগ-সুবিধা ও নিয়মকানুন রয়েছে সেগুলো রোহিঙ্গাদেরও দিতে হবে।

সমাবেশে ৭ দফা দাবি উত্থাপন করেন মাস্টার নুরুল আমিন। দাবিগুলো হলো, দ্রুত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন, ১৯৮২ সালের নাগরিকত্ব আইন বাতিল করতে হবে, দ্রুত রোহিঙ্গাদের নিজ নিজ গ্রামে পুনরায় প্রত্যাবাসন করা, অধিকার এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, নির্দিষ্ট সময়ের প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া কার্যকর করা, রাখাইন রাজ্যে আইডিপি ক্যাম্প বন্ধ করা এবং তাঁদেরকে নিজ গ্রামে ফিরিয়ে দেওয়া, মিয়ানমারে নিরপরাধ মানুষদের ওপর অত্যাচার বন্ধ করতে হবে।

লম্বাশিয়া ক্যাম্প ১ ইস্ট ছাড়াও মোচরা ক্যাম্প ৪, বালুখালী ৯, জামতলী ক্যাম্প ১৫ ও জাদিমুরা ক্যাম্প ২৭ সহ ১০টি ক্যাম্পে পৃথক পৃথক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় বলে জানা গেছে। নির্যাতিত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ব্যানারে এই আয়োজন করা হয়। অনলাইনে প্রচারণার মাধ্যমে বিশ্ববাসীর কাছে তাঁরা এই আহ্বান অব্যাহত রাখবে বলে সমাবেশে জানানো হয়।

১৪ এপিবিএন এর অধিনায়ক পুলিশ সুপার নাঈমুল হক সমাবেশের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, “রোহিঙ্গারা সীমিত সময়ের জন্য তাঁদের নিজ দেশে ফেরার দাবিতে সমাবেশ করেছে। ক্যাম্পের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এপিবিএন এর চলমান তৎপরতা অব্যাহত আছে” । কথাপ্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, “রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী তাদের স্বদেশে ফিরে যাবার আগ্রহকে আমরা স্বাগত জানাই। তারা নিজ থেকেই বুঝতে পারছে তাদের দেশে ফিরে যাওয়া দরকার, এটা ইতিবাচক বলে আমরা মনে করি।”

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর দুর্বৃত্তের গুলি নিহত রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ একই দাবিতে ২০১৯ সালের ২৫ আগস্ট অনুষ্ঠিত মহাসমাবেশের নেতৃত্বে ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর....