• বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
বিএমএসএফ কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্দ্যোগে ১৫-ই আগষ্ট উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন। নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, কথিত প্রেমিক কক্সবাজারের রেজা চট্টগ্রামে আটক ভোটার প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা অধ্যুষিত সীমান্ত এলাকার জন্য ইসি সচিবালয় কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশিকা। কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইন চার্জ মনোনীত হয়েছেন’ উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম আবাসিক হোটেলে মিলল এক নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ, কথিত স্বামী পলাতক। বনের জন্য কক্সবাজার হবে মডেল জেলা-প্রধান বনসংরক্ষক কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে হেড মাঝিসহ ০২জন নিহত। আর্থিক খাতে লুটপাটের দায় জনগণ শোধ করবে কেন? মাদক ও ইয়াবার বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রেখে তরুণ সমাজকে রক্ষা করুণ । কক্সবাজার জেলা বিএমএসএফ এর জরুরী সভা অনুষ্ঠিত

নিজ দেশের আকাশে ঘুড়ি উড়ানোর স্বপ্ন নিয়ে ক্যাম্পের আকাশে ঘুড়ি উড়াল রোহিঙ্গা শিশুরা

AnonymousFox_bwo / ৬৪ মিনিট
আপডেট মঙ্গলবার, ১২ জুলাই, ২০২২

 

আইকন নিউজ ডেস্কঃ 
পরভূমে কাঁটাতারের সীমানায় অবরুদ্ধ জীবনে এক ফালি খুশির রঙিন আকাশের সন্ধান পেয়ে ঈদ আনন্দ মেতে উঠেছিল একদল রোহিঙ্গা শিশু-কিশোর। আর এ আনন্দের দেখা মিলে উখিয়া উপজেলার ১৯ নম্বর ক্যাম্পের ঘোনার পাড়া নির্মাণাধীন পুলিশ ক্যাম্প মাঠে ঈদ উপলক্ষে আয়োজিত ‘ঘুড়ি উৎসবে’। ভিন্ন আয়োজনে ঈদ উদযাপনের এ উৎসব ঘিরে ঢল নেমেছিল কয়েক শত রোহিঙ্গা শিশুর। রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) ঘুড়ি উৎসবের এ আয়োজন করে।

শরণার্থী শিবিরে সবুজ পাহাড়ি পাদদেশে নীল আকাশে উড়ছে বাজপাখি, চিল, প্রজাপতি, হুতুমপেঁচা ও বাঘসহ আরও কত প্রাণী। আর সেই দৃশ্য শিশু-কিশোরসহ প্রাণভরে উপভোগ করে উৎসবে অংশ নেন রোহিঙ্গারা। তবে এগুলো সত্যিকারের প্রাণী নয়, প্রাণীর আদলে তৈরি ঘুড়ি।

ঘর তাদের কেড়ে নিয়েছে, কেড়ে নিয়েছে দেশ, নাগরিক পরিচয়, কিন্তু আকাশ কি কেড়ে নেয়া যায়? তাইতো নিজ দেশ ছাড়া রোহিঙ্গা শিশুদের এক আকাশ ঘুড়ি অধিকারে নেয় বিকেলের উচ্ছ্বাস। ঈদুল আজহায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আয়োজিত ঘুড়ি উৎসবে অংশ নিয়ে রোহিঙ্গা শিশু কিশোরেরা বলছে, তারা চায় নিজ দেশ মিয়ানমারের আকাশে ঘুড়ি উড়াতে। ঈদের এ আনন্দ সেইদিনই পূর্ণতা পাবে। তারপরও রোহিঙ্গা শিশুরা খুবই খুশি পরভূমে অবরুদ্ধ জীবনের এ আয়োজনে।
উখিয়া ক্যাম্প ১৯ এর মসজিদুল মোহাজেরিনের প্রধান ইমাম শাহে আলম বলেন, আশ্রিত জীবনে এ আয়োজনের জন্য সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানায়। এ উৎসব রোহিঙ্গা শিশুদের নৈতিকতা গঠনে ভূমিকা রাখবে। এর ফলে রোহিঙ্গা শিশুদের ঈদের খুশি বাড়িয়ে দিয়েছে।

উখিয়াস্থ ৮ এপিবিএন অধিনায়ক সিহাব কায়সার খান জানান, ঈদুল আজহার আনন্দ ভাগাভাগি করতে রোহিঙ্গাদের মাঝে এই খুশি ছড়িয়ে দিতে এই আয়োজন করা হয়েছে। শতাধিক রোহিঙ্গা শিশু ঈদ উদযাপনে ঘুড়ি উৎসবে অংশ নেয়। মূলত নিজেদের দেশ আর শৈশব স্মৃতির স্মরণ আর কিছুটা হলেও উচ্ছ্বাসের রং ছড়াতে এই উদ্যোগ।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে ৮ এপিবিএন এর উদ্যোগে তিনদিনের কর্মসূচির মধ্যে রোববার বিকেলে চলে ঘুড়ি উৎসবের আয়োজন, সোমবার দ্বিতীয় দিনে অনুষ্ঠিত হয় চকলেট বিতরণ ও খেলাধূলার আয়োজন। আর তৃতীয় দিন মঙ্গলবার (১২ জুলাই) রোহিঙ্গা শিশুদের অংশগ্রহণে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও পুরুস্কার বিতরণের মাধ্যমে কর্মসূচীর সমাপ্তি ঘটবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর....